Umrah Hajj Rules in Bangla | বাংলায় উমরাহ হজ্জ্ব পালনের নিয়ম

Book travel packages and enjoy your holidays with distinctive experience

Photo Gallery

Book any package

Book any packages by make a call.

You are also most welcome to our office. Please come to have a cup of coffee.

Only BDT.

Phone: +88 01684 720 008


Email: itsholidaysbd@gmail.com
Mobile: +88 01684 720 008
Mobile: +88-02-9611677888
Address: Punnashi Villa, Level-4, Flat-4/A, House-150, Block-E, Road-10, Banani, Dhaka-1213, Bangladesh.

Description

আলহামদুলিল্লাহ! আল্লাহ আপনাকে কবুল করেছেন তাঁর মেহমান হিসেবে। যেহেতু আপনি উমরা হজের নিয়ম জানার জন্য ইচ্ছুক তাই এই লিখনীতে আমরা চেষ্টা করেছি একটা পরিপূর্ন উমরা হজের গাইড উপস্থাপন করতে. আশা করি এই গাইডটি নতুন আর পুরাতন যারা উমরা করতে আগ্রহী তাঁদের কাজে আসবে।

চলুন আর দেরি না করে আমরা উমরা হজের নিয়মগুলো পড়তে আর জানতে শুরু করি।

উমরা হজের নিয়ম

প্রথমে আমরা উমরা কি সেটা সম্পর্কে জানার চেষ্টা করি।

উমরা শব্দের অভিধানিক অর্থ হল সাক্ষাৎ করা বা পরিদর্শন করা। ইসলামের ভাষায় শুধুমাত্র হজের সময় ছাড়া বছরের যেকোন সময় পবিত্র কাবা শরীফ তাওয়াফ করাকে উমরাহ বলে।

রমজান মাসে উমরাহ পালনের বিশেষ ফজিলত রয়েছে। তাই যারা উমরা পালনে ইচ্ছুক তাঁরা চেষ্টা করে রমজান মাসে উমরা পালন করতে।

উমরা হজ পালনের ফজিলত অনেক। হাদিসে রয়েছে হজরত আবু হুরায়রা (রা.) হতে বর্ণিত – রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, এক উমরাহ হতে অন্য উমরাহ পর্যন্ত মধ্যবর্তী সবকিছুর গুনাহের কাফফারা। আর মাবরুর হজের প্রতিদান হলো জান্নাত ( বুখারী ও মুসলিম)। অন্য হাদীস শরীফে প্রিয়নবী (সা.) বলেছেন, তোমরা বারবার হজ্জ ও উমরাহ আদায় কর, কেননা এ দুটো দারিদ্রতা ও গুনাহকে সে ভাবে মুছে ফেলে, যে ভাবে কর্মকারের হাওয়া দেয়ার যন্ত্র লোহার ময়লাকে দূর করে থাকে। (নাসায়ী শরিফ।)

কিন্তু উমরাহ সঠিকভাবে পালনের কিছু নিয়ম রয়েছে যা পুরোপুরি ভাবে পালন না করলে আপনার উমরাহ কবুল না হওয়ারই সম্ভাবনা বেশি। এতে আপনার আর্থিক,মানসিক ও শারীরিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে।

তাই আপনি যদি উমরাহ পালন করতে ইচ্ছুক হন তাহলে নিম্নলিখিত নিয়ম গুলি সঠিক ভাবে পালনের চেষ্টা করবেন। বাকিটা আল্লাহর ইচ্ছে।

উমরাহ পালনের নিয়ম সমূহ:

উমারাহ পালনের শর্ত দুই ধরণের – ফরজ এবং ওয়াজিব।

ফরজ শর্ত হল:

১) ইহরাম পড়া

ইহরাম পড়া মানে নিয়তের মাদ্ধমে কতিপয় হালাল কাজকেও নিষিদ্ধ মনে করে উমরাহ বা হজ পালনের উদ্দেশ্য রওনা দেয়া।

ইহরাম পড়ার পূর্বে অবশ্যই:

ক) শরীরের সম্পুর্ন পরিচ্ছন্নতা অর্জন করা।

খ) গোসল করা

গ) পুরুষরা সেলাইবিহীন দুইটা কাপড় পড়বেন আর মহিলারা সাধারণ পোশাক দিয়েই ইহরাম পড়বেন।

ঘ) দুই রাকায়াত নফল নামাজ

ঙ) মিকাতে যাওয়ার পূর্বে উমরাহ বা হজের নিয়ত করবে

চ)  এর পর তালবিয়া পড়তে হবেঃ

লাব্বাঈক আল্লাহুম্মা লাব্বাঈক, লাব্বাঈক, লা-শারীকা-লাকা লাব্বাঈক, ইন্নাল হামদা ওয়ান্ নি’মাতা লাকা ওয়াল-মুল্ক, লা শারীকালাক।”

অর্থ:

আমি হাজির হে আল্লাহ! আমি উপস্থিত! আপনার ডাকে সাড়া দিতে আমি হাজির। আপনার কোন অংশীদার নেই। নিঃসন্দেহে সমস্ত প্রশংসা ও সম্পদরাজি আপনার এবং একচ্ছত্র আধিপত্য আপনার। আপনার কোন অংশীদার নেই।

ইহরাম বাঁধার পর কিছু নিষিদ্ধ কাজ আছে যা করা থেকে বিরত থাকতে হবে:

১) জুতা ব্যাবহার

২) চুল ও নখ কাটা

৩) সুগন্ধি ব্যবহার করা

৪) স্ত্রীর সাথে সঙ্গম

৫) ঝগড়া করা

৬) যেকোন জীবজনতু হত্যা করা

২) পবিত্র কাবা ঘর তাওয়াফ করা

তাওয়াফ করার নিয়ম হল:

ক) নিয়ত করা

খ) কাবা ৭ বার চক্কর দেয়া

গ) বিসমিল্লাহ আল্লাহু আকবার বলে তাওয়াফ শুরু করা

ঘ) রুকুনে ইয়ামিন হতে হাজরে আসওয়াদ পর্যন্ত “রব্বানা আতিনা ফিদ্দুনিয়া হাসানাতাঁও ওয়া ফিল আখিরাতে হাসানাতাঁও ওয়া কিনা আজাবান্নার” দুআ পড়া।

ঙ) তারপর হাজরে আসওয়াদের দিকে ইশারা করে ডান হাত তুলে তাকবীর পড়তে হবে।এভাবে ৭ বার করে তাওয়াফ শেষ করতে হবে।

ওয়াজিব শর্ত সমূহ হল:

১) সাফা ও মারওয়া পাহাড়ের মাঝে 7 বার সায়ি করা।

সায়ি করার নিয়ম হল:

ক) সাফা পাহাড়ের কাছে এসে নিয়ত করা এবং দুআ পড়তে পড়তে মারওয়া পাহাড়ের অভিমুখী হওয়া।

খ) মাঝে দুই সবুজ বাতির মাঝখানে দ্রুতগতিতে হাটতে হবে। পুরুষদের হালকা দৌড় দিতে হবে।

গ) সায়ি করার কোন নির্দিষ্ট দুআ নেই। যেকোন দুআ পড়তে হবে। এভাবেই ৭ বার সাফা মারওয়া হেটে সায়ি শেষ করতে হবে।

২) মাথার চুল ছেটে ফেলা।

এটি হল উমারাহের শেষ ধাপ। সায়ি শেষে পুরুষরা সম্পূর্ণ চুল ছেটে ফেলতে পারবে বা চুল ছোট করে কেটে ফেলতে পারবে। মহিলারা তাদের চুল আধা আঙ্গুল পরিমান কেটে ফেলতে পারবে। চুল কেটে ফেলার পরই ইহরাম খুলে ফেলতে পারবে এবং যেসব হালাল কাজ নিষিদ্ধ ছিল তা করা যাবে।

এই হল উমরাহ হজ পালনের কিছু নিয়মাবলি। যারা নতুন হজে যাচ্ছেন তাঁরা সকল নিয়ম সঠিকভাবে পালনের চেষ্টা করবেন কারন উমরা পালনের মাধ্যমে একজন মুসলমানের বিগত গুনাহগুলি আল্লাহর ইচ্ছায় সম্পূর্ণভাবে মুছে যায়। আল্লাহ আমাদের সকলকে উমরাহ করার তৌফিক দিন।

Read More:

Domestic Air Ticket Price In Bangladesh

Umrah Package From Bangladesh

Umrah Benefits

What Is The Difference Between Hajj And Umrah

WE ACCEPT PAYMENTS

Pay Online With
Covid 19

Get Updates & More

Thoughtful thoughts to you inbox

Copyright © 2014-21 ITS HOLIDAYS LTD

We are here
You cannot copy content of this page